ব্যাগ নয়, আত্মঘাতীর কাঁধে ছিল বোমা

রাজধানীর আশকোনায় র‌্যাবের নির্মাণাধীন সদর দফতরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত যুবকের লাশের পাশ থেকে উদ্ধারকৃত ট্রাভেল ব্যাগটি আদৌ কোন ব্যাগ ছিল না। প্রকৃতপক্ষে সেটি ছিল একটি বোমা। এ ধরণের বোমা এর আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কখনো দেখেনি।
বাংলাদেশে এ ধরনের বড় ও শক্তিশালী হাতে তৈরি বোমা আগে কখনো ব্যবহার হয়নি। এটা ব্যাগের মতো কাপড় পেঁচানো ছিল। ব্যাগটি পাওয়ার পর প্রথমে ধারণা করা হয়েছিল সেটির ভেতরে হয়তো বোমা আছে। পরবর্তীতে পরীক্ষার পর জানা যায়, সেটিই একটি আস্ত বোমা। বোমাটি নিষ্ক্রিয় করার পূর্বে র‌্যাব আশপাশের এলাকায় মাইকিং করে যাতে এর শব্দে কেউ আতঙ্কিত না হয়।
র‌্যাবের পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং) মুফতি মাহমুদ খান বলেন, দূর থেকে দেখে সবাই মনে করেছিল এটি ব্যাগ। কিন্তু সেটি ছিল বোমা। বোমাটি পরবর্তীতে নিষ্ক্রিয় করে র‌্যাব।
শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর আশকোনায় হজ ক্যাম্প সংলগ্ন র‌্যাবের অস্থায়ী ক্যাম্পে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে হামলাকারী যুবক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন র‌্যাবের দুই কর্মকর্তা।
ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের কর্মকর্তারা। আলামত সংগ্রহ করেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম সিন ইউনিট এবং পুলিশ ব্যুরোা অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) সদস্যরা। নিজেদের মতো করে আলামত সংগ্রহ করে র‌্যাব।
এদিকে ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী কিছু সিসি টিভির ফুটেজ পরীক্ষা করা হচ্ছে। তবে এখনো সেখান থেকে সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। তবে সন্দহজনক কয়েকটি মোবাইল নম্বর পরীক্ষা করা হচ্ছে।
বিমানবন্দর থানার ওসি নূরে আযম মিয়া বলেন, ঘটনার পর থেকেই আশকোনার আশপাশ এলাকার সিসিটিভির ফুটেজ যাচাই-বাছাই চলছে। তবে এখনো সন্দেহভাজন কাউকে চিহ্নিত করা যায়নি। সন্দেহভাজন কয়েকটি মোবাইল ট্র্যাকিং করে জড়িতদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.