দেব জ্যোতি ভক্ত’র তিনটি কবিতা

|| জীবন আনন্দের দাস ||

জীবন যেনো একটা মানুষের মতো দাঁড়ায়ে আছে
অথবা
শুয়ে থাকা কোন কুকুর গাছের পাতা ঝরে পড়ার শব্দে
হঠাৎ জেগে ওঠে জীবনের মতো;
জাগ্রতকারী পাতার সাথে তোমার কিছুটা মিল আছে
সবুজ ছিদ্রের ভেতর প্রকট পিছুটান।

জীবন জেদী কোন প্রেমিকার মতো
অসভ্য এক রিকশাওয়ালার মতো, কমলালেবুর মতো
শহরের ব্যস্ত একটা ওভারবিজ্রের মতো।

জীবন হাইস্কুলের  নীল শাড়িপরিহিতা
ইংলিশ মিস্ট্রেসের টেন্সের ক্লাসের মতো।

***

|| মানদণ্ড ||

স্নানঘরে ধারালো জলরাশি
ব্লেডের মূর্ছনায় কাঁপে;
চুপিচুপি স্তভিভূত মৃত্যু আসে
উচ্ছিদ্যমান কুসুম পাপে।

পাখিদের উড়ে যাওয়া আকাশের
তুলতুলে গালে টসটসে চুম্বন
অন্ধকারের অক্ষর বেয়ে বেয়ে পড়ে
টপটপ করে নিষিদ্ধ ঝাউবন।

স্নানঘরে ধারালো জলরাশি
ব্লেডের মূর্ছনায় কাঁপে;
মানুষ বেঁচে থাকে মানুষ বেশে
নিজস্ব মৃত্যুর উত্তাপে।

***

|| জাহাজভর্তি ঘুমের সৌরভ ||

ঘুমের পাশ্ববর্তী বালিশের বিচরণ থেকে
খসে পড়ে রাতের ব্যাকরণ।

একা একটা মানুষ দাঁড়ায়ে আছে
নিশ্চুপ ভাস্কর্যের মতো।

কিছু প্রেম ক্ষুধার স্নিগ্ধতা নিয়ে
বেঁচে আছে দুর্ভিক্ষপীড়িত হয়ে।

আমাদের পৃথিবীতে প্রতিটি প্রেমিকা
একেকটি ঈশ্বর হয়ে ঘুমিয়েছে।

***

মানবকণ্ঠ/স্বরলিপি

Leave a Reply

Your email address will not be published.