‘ছায়ানীড়’ ভবনে বোমা তল্লাশি অভিযান সমাপ্তি ঘোষণা

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসদরের ৫ নং ওয়ার্ড চৌধুরীপাড়া প্রেমতলা এলাকার আলোচিত ‘ছায়ানীড়’ ভবনে বোমা তল্লাশি অভিযান সমাপ্ত করেছে বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি)। সোমবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১ টায় বাকি থাকা একটি কক্ষ তল্লাশি চালিয়ে এ অভিযান সমাপ্তি ঘোষণা করেন। এতে ওই কক্ষ থেকে একটি বড় বোমা নিষ্ক্রিয় করেন, ৯টি জেল ছোট বোমাসহ একটি প্রাথমিক চিকিৎসার প্রাষ্টটেষ্ট বক্স উদ্ধার করে বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি)। দুপুরে চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা সাংবাদিকদের ছায়ানীড় ভবনের তল্লাশি অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন বলে তিনি জানান।
ছায়ানীড়ে ১৬ মার্চ ছায়ানীড় ভবনে আটকে থাকা দীর্ঘ ১৯ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন ‘অপারেশন অ্যাসল্ট সিক্সটিন’। ওই ভবন থেকে সাতটি ইউনিটের ভাড়া থাকা ২২ জনকে উদ্ধার করে সোয়াত টিমের সদস্যরা। সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১১টি বোমা বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি) নিস্ক্রিয় করে। ১৮ মার্চ পুনঃরায় আর একটি কক্ষে তল্লাশি চালিয়ে সাতটি বোমা উদ্ধার করে নিষ্ক্রিয় করে বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি) একই দিনে ছায়ানীড়ের জঙ্গি আস্তানায় থেকে ৫ ড্রাম ৪০ লিটার করে মোট ২০০ লিটার হাইড্রোজেন অক্সাইড, একটি ড্রামে ৫০ লিটার সালফাইট এসিড, বোমা, গ্রেনেড ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করে। ১৯ মার্চ পুনঃরায় ২টি কক্ষ ও ভবনের বাহিরে তল্লাশি করে সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১৮টি বোমা নিস্ক্রিয় করে বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি)। সর্বশেষ সোমবার দুপুর পর্যন্ত মোট প্রায় ৩৭টি বড় বোমা উদ্ধার করে বোমা ডিসপোজল ইউনিট (সিএমপি) নিষ্ক্রিয় করে।
উল্লেখ্য, গত বুধবার বিকেলে পৌরসদরের নামার বাজার ৭নং ওয়ার্ডের পশ্চিম আমিরাবাদ এলাকার সুভাষ দাশ সুরুজের মালিকানাধীন সাধন কুঠির থেকে ৪ মাসের শিশুসহ জসিম উদ্দিন ও আকলিমা আক্তার নামের দুই জঙ্গিকে আটক করেন পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে চারটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ৩ শক্তিশালী গ্রেনেড, একটি সুইসাইড বেল্টে বাঁধা হ্যান্ড গ্রেনেড নিষ্ক্রিয় করেন রাজেশ বড়ুয়ার নেতৃত্বে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন বিষ্ফোরক বিশেষজ্ঞ দল। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি পিস্তল, ১২ রাউন্ড বুলেট, এক হাজার ইলেকট্রনিক্স সার্কিট ও বেশ কয়েকটি ইসলামী জেহাদি বই উদ্ধার করেন। একই ভাবে আটককৃত জঙ্গিদের তথ্যর ভিত্তিতে বিকেলে পৌরসদরের চৌধুরীপাড়া এলাকার মৃত প্রবাসী রেহেনা বেগমের মালিকানাধীন ছায়ানীড়ের দ্বিতল ভবনে জঙ্গি আস্তানার অভিযান চালায় পুলিশ। এতে জিম্মি হয়ে পড়েন ছায়ানীড়ের নিচ তলায় দ্বিতল তলা ভবনের ৮ ইউনিটের ৬ পরিবারের ২২ জন।

মানবকণ্ঠ/এসএইচ/এসএস