চট্টগ্রামে আরো দুটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান

ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম নগরীর আকবর শাহ থানার কর্নেল হাট সিডিএ আবাসিক এলাকার এক নম্বর সড়কে ও উত্তর কাট্টলি এলাকার ঈশান মহাজন সড়কে অবস্থিত দুটি বাড়িতে আরো দুটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পুলিশ বাড়ি দুটি ঘিরে রেখেছে।
সম্প্রতি মিরসরাই ও সীতাকুণ্ডের পর চট্টগ্রাম নগরীর আকবর শাহ থানা এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে দুটি বাড়িতে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম নগর পুলিশের পশ্চিম জোনের উপ-কমিশনার ফারুকুল ইসলাম জানান, সিডিএ এক নম্বর রোডের মম নিবাস নামের চারতলা ভবনটি ঘিরে রেখেছে পুলিশ। সেখানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। এ বাড়িতে জঙ্গি আছে বলে পুলিশের কাছে খবর রয়েছে।
এছাড়াও উত্তর কাট্টলী এলাকার অপর বাড়িটিও ঘিরে রাখা হয়েছে। তবে ওই কাট্টলির বাড়িটিতে পুলিশ এখনো তল্লাশি শুরু করেনি। কাট্টলির ইশান মহাজন সড়কে অবস্থিত পাঁচতলা বাড়িটি ঋশি সাহার মালিকানাধীন বলে জানা যায়। ওই দুটি স্থানে পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সোয়াত, র‌্যাব ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট, বোম নিস্ক্রিয়করণ দলসহ প্রায় দু’শ সদস্য রয়েছেন।
এ দিকে ব্যাপারে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সীতাকুণ্ডের নামারবাজার এলাকার সাধন কুঠির নামে বাড়ির জঙ্গি আস্তানা থেকে আটক দুই জঙ্গির মধ্যে মহিলা জঙ্গি জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানান, আকবর শাহ থানা এলাকায় তাদের আরো সঙ্গীরা অবস্থান করছেন। এই তথ্যের ভিত্তিতে এই অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। তল্লাশি চলছে তবে এখনো পর্যন্ত কিছু পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, এরআগে গত ১৫ মার্চ দুপুরে সীতাকুণ্ড পৌরসভার নামারবাজার আমিরাবাদের সাধন কুঠির থেকে এক নারীসহ দুই জঙ্গিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে কলেজ রোডের চৌধুরীপাড়ার প্রেমতলা এলাকার ছায়ানীড় ভবনের বুধবার বিকেল তিনটা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ছায়ানীড় ভবনে ‘অপারেশন অ্যাসল্ট-১৬’ চালায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ২০ ঘণ্টার এ অভিযানে ২০ জন জিম্মিকে উদ্ধার করা হয়। এছাড়া চার জঙ্গিসহ পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.