কক্সবাজারে প্রথম দিনের অভিযানে অর্ধশতাধিক ঝুঁকিপূর্ণ বসতি উচ্ছেদ

কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজার শহরে অর্ধশতাধিক ঝুঁকিপূর্ণ বসতি উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন। গতকাল সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, জেলা প্রশাসন এবং পরিবেশ অধিদফতরের সমন্বয়ে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় দু’জনকে ৫৫ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।
কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ বলেন, পাহাড়ে বসবাসকারীদের সংখ্যা কমাতে এবং পরিকল্পিত কক্সবাজার গড়ে তুলতে উচ্ছেদ অভিযান চলছে।
অভিযানে শহরের আলির জাহানের গরুর হালদা এলাকায় ১২টি, বিডিআর ক্যাম্পের পল্লান্যা কাটা এলাকায় ২০টি এবং লাইট হাউজের ফাতের ঘোনা এলাকায় ২০টি অধিক ঝুঁকিপূর্ণ বসতি উচ্ছেদ করে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া এসব এলাকায় আরো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারীদের তিন দিনের মধ্যে অন্যত্র আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। আশ্রয় না নিলে তাদেরও উচ্ছেদ করা হবে।
পরিবেশ অধিদফতর কক্সবাজার কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সরদার শরিফুল ইসলাম বলেন, গরুর হালদা এলাকায় ফোরকান নামের এক ব্যক্তি বিশাল পাহাড় কেটে ১৫টির অধিক স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। বর্তমানে তৈরি করা হচ্ছে বিল্ডিংও। এ ছাড়া তিনি পাহাড় কেটে প্লট আকারে বিক্রিও করে যাচ্ছেন। অভিযানে তার সব স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ৫০ হাজার টাকাও জরিমানা করা হয়েছে তাকে। তার বিরুদ্ধে পাহাড় কাটার মামলা রয়েছে। অন্যদিকে পল্লান্যা কাটা এলাকায় বসতি উচ্ছেদ করতে গেলে নাজমুল নামের এক যুবক বাধা দেন। এ অভিযোগে তাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।